তুরস্কের কমব্যাট ড্রোন ক্রয় করতে প্রস্তুত ইউক্রেন, লাটভিয়া এবং পোল্যাণ্ড

রাশিয়ার সামরিক আগ্রাসন থেকে নিজেদের রক্ষার জন্য আরো বেশি সংখ্যক তুরস্কের কমব্যাট ড্রোন ক্রয় করতে চায় ইউক্রেন, লাটভিয়া এবং পোল্যাণ্ড।

পোল্যাণ্ড মোট ২৪টি তুরস্কের নিজস্ব প্রযুক্তির তৈরি বায়রাকতার টিবি-২ কমব্যাট ড্রোন ক্রয় করবে।

যা ২০২২ সাল থেকে সরবরাহ শুরু করবে তুর্কী ড্রোন নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান বায়কার মাকিনা। এদিকে তূর্কী টিবি-২ কমব্যাট ড্রোন পোল্যান্ডের জন্য সবচেয়ে উপযোগী হবে বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির উপ-প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ওজসিয়েচ স্কুরিউইচ।

তিনি পোল্যাণ্ডের পার্লামেন্টের নিরাপত্তা বিষয়ক কমিটিকে জানান যে, বর্তমানে তুরস্কের তৈরি টিবি-২ ড্রোন যুদ্ধক্ষেত্রে সামরিক অভিযান পরিচালনার জন্য সবচেয়ে কার্যকর এবং ব্যাটল প্রুভেন একটি ডিফেন্স সিস্টেম।তুরস্কের ডেইলী সাবাহ ইয়ানী সাফাক নিউজ এজেন্সি এ তথ্য দিয়েছে।

গত ৬ই জুলাই মঙ্গলবার পোল্যাণ্ডের প্রতিরক্ষামন্ত্রী দেশটির পার্লামেন্টে নিরাপত্তাবিষয়ক কমিটিকে বলেন যে, তুরস্কের নিজস্ব প্রযুক্তির তৈরি বায়রাখতার টিবি-২ কমব্যাট ড্রোন ছাড়াও আমাদের অন্য কোনো দেশের ড্রোন কেনার সুযোগ ছিল।

তবে তুরস্কের নিজস্ব প্রযুক্তির টিবি-২ ড্রোন পোল্যান্ডের সামরিক অভিযান পরিচালনার জন্য সবচেয়ে বেশি কর্যকর হবে। এই তুর্কী টিবি-২ কমব্যাট ড্রোনের প্রথম ব্যাচ পোল্যান্ডের কাছে দেয়া হবে আগামী ২০২২ সালের অক্টোবর মাসে এবং ২য় ব্যাচে আগামী ২০২৩ সালের এপ্রিল মাসে পোল্যান্ডের কাছে সরবরাহ করা হবে।

তাছাড়া চলতি ২০২১ সালের ২০শে জুন ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডাইমেট্রো কুলেবা জানান যে, তার দেশ তুরস্ক থেকে আরো বেশি সংখ্যক বায়রাকতার টিবি-২ কমব্যাট ড্রোন ক্রয় করবে।

এ সময় তুর্কি ড্রোনের ব্যাপক প্রশংসা করে তিনি সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন যে, তুরস্কের নিজস্ব প্রযুক্তির তৈরি কমব্যাট ড্রোনগুলো খুবই উন্নত মানের এবং যুদ্ধক্ষেত্রে বহুল পরীক্ষিত।

তাই ইউক্রেন তার আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সুনিশ্চিত করার লক্ষ্যে এবং ভবিষ্যতে রাশিয়ার যে কোন ধরণের সামরিক আগ্রাসন রুখে দিতে তুরস্ক থেকে আরো অধিক পরিমাণে বায়কার মাকিনার তৈরি এডভান্স বায়রাক্তার টিবি-২ কমব্যাট ড্রোন ক্রয় করতে চায়।

যদিও ইউক্রেন ২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসে স্বল্প মূল্যের প্যাকেজে ১২টি বায়রাক্তার টিবি-২ কমব্যাট ড্রোন এবং ৩টি গ্রাউণ্ড স্টেশন ক্রয় করে ৬৯.০০ মিলিয়ন ডলার চুক্তিমূল্যে।

চুক্তি মোতাবেক তুরস্ক ২০১৯ সালের মার্চ মাসে প্রথম ব্যাচে বেশ কিছু ড্রোন ইউক্রেনের কাছে সরবরাহ সম্পন্ন করে এবং চলতি ২০২১ সালের মার্চের মধ্যে সকল ড্রোন হস্তান্তর সম্পন্ন করা হয়েছে বলে মনে করা হয়।

বর্তমানে তুরস্কের সামরিক বাহিনীর পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ক্রেতা হিসেবে আজারবাইজান, ইউক্রেন, কাতার এবং লিবিয়া টিবি-২ কমব্যাট ড্রোন সফলতার সাথে ব্যবহার করে যাচ্ছে। আবার এদিকে মধ্যপ্রাচ্যে তুরস্কের অন্যতম প্রতিদ্বন্দী সৌদি আরব তুরস্কের তৈরি এই জাতীয় কমব্যাট ড্রোন ক্রয়ের প্রবল আগ্রহ দেখিয়েছে।

বিশেষ করে সাম্প্রতিক সময়ে ইউরোপীয় ককেসীয় অঞ্চলের নার্গানো-কারাবাখ উদ্ধার যুদ্ধে আজারবাইজানের সামরিক বাহিনী ব্যাপকভাবে তুর্কী কমব্যাট ড্রোনের সফল ব্যবহার করে বিশ্বকে একেবারে চমকে দেয়।

আর ৪৪ দিনের সংক্ষিপ্ত এই যুদ্ধে আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনী কমব্যাট ড্রোনের হামলায় ভয়াবহভাবে বিপর্যস্ত হয়। বিশেষ করে টিবি-২ ড্রোনের হামলার মুখে রাশিয়ার তৈরি এস-৩০০ এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম, ট্যাংক এবং আর্টিলারী সিস্টেমগুলো নজিরবিহীনভাবে ধ্বংস হয়ে যায়।

তাছাড়া তুরস্কের তৈরি এ্যাটাক ড্রোন (ইউএভি) সিরিয়া, ইরাক ও লিবিয়ায় ব্যাপক আকারের এয়ার কমব্যাট মিশন পরিচালনা করে তার প্রযুক্তিগত সক্ষমতার পরিচয় দিয়ে রেখেছে। সিরিয়া ও লিবিয়ায় থাকা রাশিয়ার বেশকিছু পান্তাসির এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম ধ্বংস করে তুমুল আলোড়ন সৃষ্টি করে এই ড্রোন। তাছাড়া নিজ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সক্রিয় থাকা সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কমব্যাট ড্রোন সফলভাবে ব্যাবহার করে যাচ্ছে তুরস্কের সামরিক বাহিনী।

তুরস্ক মুলত বিগত ১০ বছর থেকে তাদের উচ্চ প্রযুক্তির ড্রোন (ইউএভি) উন্নয়ন এবং ডিজাইনে কাজ করে যাচ্ছে এবং দেশটির সামরিক বাহিনী ২০১৫ সাল থেকে এই জাতীয় ড্রোন ব্যাবহার করে আসছে। ২০১৪ সালে প্রথম ব্যাচে ৬টি এবং ২০১৫ সালে দ্বিতীয় ব্যাচে ৬টি এই জাতীয় কমব্যাট ড্রোন্ন তুরস্কের সেনাবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা হয়। বর্তমানে তুরস্কের সামরিক বাহিনীর কাছে প্রায় এক শতাধিক এই জাতীয় কমব্যাট ড্রোন সক্রিয় রয়েছে। এদিকে তুরস্কের তৈরি ১৫০ কিলোমিটার রেঞ্জের বায়রাক্তার টিবি-২ কমব্যাট ড্রোন (ইউএভি) তুরস্কের আকাশে ইতোমধ্যেই ২ লাখ ঘন্টা উড্ডয়ন করে আরেকটি রেকর্ড ভেঙেছে।

তুরস্কের নিজস্ব প্রযুক্তির তৈরি বায়রাক্তার টিবি-২ ড্রোন হচ্ছে একটি এডভান্স মিডিয়াম এল্টিটিউট লং এন্ডিউরেন্স (এমএএলই) কমব্যাট ড্রোন (ইউএভি)। যা কিনা একাধারে ইন্টালিজেন্স, সার্ভেলেন্স, রিকর্নিয়েন্স এবং তার পাশাপাশি শত্রু সীমানায় সরাসরি কমব্যাট বা এট্যাক মিশনে পরিচালনা করার বিশেষ উপযোগী করে ডিজাইন করা হয়েছে। এটি সর্বোচ্চ ১৮ হাজার ফিট উচ্চতায় একাধারে ২৭ ঘন্টা পর্যন্ত কমব্যাট মিশন পরিচালনা করতে সক্ষম এবং এটি ১৫০ কেজি ওজনের অস্ত্র ও ৪টি মিসাইল বহন করতে সক্ষম।

প্রতি ঘন্টায় ২২০ কিলোমিটার গতি সম্পন্ন এই ড্রোনটিকে একাধারে বুদ্ধিমত্তা, নজরদারি, আকাশে দীর্ঘ সময় উড্ডয়ন করা এবং বিশেষ করে শত্রু পক্ষের অবস্থানে এক রকম নিরবেই মিসাইল হামলা চালাতে সক্ষম করে ডিজাইন করা হয়েছে। এই কমব্যাট ড্রোনের ৪টি হার্ড পয়েন্টে এন্টি-ট্যাংক এণ্ড এন্টি এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম মিসাইল, এল-ইউএমটিএএস, এমএএম-সি/এল প্রেসিসন গাইডেড মিউনিশন, রকেটসান সিরিট ৭০ এমএম মিসাইল সিস্টেমসহ গাইডেড এণ্ড।