নারী শিক্ষকদের জন্য ‘হিজাব’ নিষিদ্ধ করল পুরান ঢাকার সেন্ট গ্রেগরি স্কুল

নারীর জন্য পবিত্রতার প্রতীক হলো হিজাব। এটি নারীর জন্য মহান আল্লাহর বিধান। তিনি প্রত্যেক ঈমানদার নারীর জন্য হিজাব পরাকে আবশ্যক করেছেন।

পুরান ঢাকার লক্ষ্মীবাজারের সেন্ট গ্রেগরিজ হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজে নারী শিক্ষকদের জন্য হিজাব নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তাদের শ্রেণিকক্ষে এবং প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে হিজাব না পরতে বলা হয়েছে।

সম্প্রতি নারী শিক্ষকদের এ নির্দেশনা দিয়ে নোটিশ জারি করেছেন প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ ব্রাদার প্রদীপ প্লাসিড গোমেজ। তার স্বাক্ষরিত সেই নোটিশ ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে বিদ্যালয়টির সাবেক শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষ প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

তাছলিম আহমেদ নামে বিদ্যালয়টির এক সাবেক শিক্ষার্থী নোটিশটি শেয়ার করে লিখেছেন, ‘নোটিশটা সত্যি হলে দুর্ভাগ্যজনক – এমন গ্রেগরি হয়ত আমরা চাইনি।’

মোসাদ্দেক সম্রাট মাওলা নামে একজন লিখেছেন, ‘আমাদের পবিত্র স্কুল কোনো ধর্ম বিদ্বেষী মানুষের পৈত্রিক সম্পত্তি নয়, বরং এ স্কুল আমাদের প্রতিটি গ্রেগরিয়ানদের। তাই এ স্কুলের সুনাম রক্ষা করা আমাদের প্রতিটি গ্রেগোরিয়ানদের পবিত্র দায়িত্ব।’

রাফসান শুভ নামে একজন লিখেছেন, ‘মনে শুধু একটা প্রশ্ন জাগে? আমরা কি আদো মুসলিম বা মুসলিম দেশ? নাকি জন্মসূত্রে পিতামাতা মুসলিম ছিল বলে আমরা তাদের দেখে মুসলিম হয়েছি?

ভাবতেও লজ্জা লাগে আমরা নাকি মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশের বাসিন্দা এবং আমাদের দেশের ৯০ ভাগ মানুষ মুসলিম। নামে মুসলিম হয়ে লাভ কি যদি মুসলিম নারীদের হিজাব নিষিদ্ধ করা হয়?’