কোরআনের একটি নুকতা পরিবর্তনের ক্ষমতা মানুষের নেই: বায়তুল মোকাররমের প্রধান ইমাম

মহানবীর ওপর যখন কোরআন নাজিল হয়েছিল তখন ইসলাম ও নবীজীর শত্রুরা উঠে পড়ে লেগেছিল। কোরআন পৃথিবীতে এসেছে ন্যায়-ইনসাফ প্রতিষ্ঠা করতে আর কাফেররা চায় পৃথিবীতে রক্তারক্তি করতে। তখন আল্লাহ পাক কোরআনের আয়াত নাযিল করলেন। ‘ওরা চায় ফুৎকার দিয়ে আমার আলোকে নিভিয়ে দিতে। আল্লাহ তার নূরকে সমুজ্জ্বল করবেন।’

দেড় হাজার বছর আগে তারা চেয়েছিল কোরআনের আলোকে নিভিয়ে দিতে, এরপর অনেকবারই কাফের, নাস্তিকরা কোরআনের আলোকে নিভিয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছে কিন্তু সফল হয়নি। তেমনি ২৬ আয়াতকে বাতিলের জন্য যারা রিট করেছে তারাও সফল হবে না।

তারা কোরআনের একটা হরফ কেন, নুকতাও পরিবর্তন করতে পারবে না ইনশাআল্লাহ। কারণ কোরআন হেফাজতের দায়িত্ব স্বয়ং আল্লাহতায়ালা নিয়েছেন।

ফেনীর দাগনভূঞার পূর্ব চন্দ্রপুর ইউনিয়নের উত্তর চাঁদপুর গ্রামে দারুল আবরার মাদ্রাসায় আলোচনা ছবক ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের প্রধান ইমাম হাফেজ মাওলানা মুফতি মিজানুর রহমান এসব কথা বলেন।

মঙ্গলবার দুপুরে মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন দাগনভূঞা আজিজিয়া সিনিয়র মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ফারুক আহমেদ মজুমদার, ফেনী সিটি কলেজ ও কুমিল্লা মহানগর কলেজের চেয়ারম্যান সহিদুল ইসলাম জিয়া, দাগনভূঞা একাডেমির প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান, মোহনা টেলিভিশনের যুগ্ম বার্তা সম্পাদক অ্যাডভোকেট শহিদুল আলম ইমরান, দাগনভূঞা আহমদিয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসার মুহতামিম হাফেজ মাওলানা ইমাম উদ্দিন।

বক্তব্য রাখেন- পূর্ব চন্দ্রপুর মডেল ইউনিয়নের মেম্বার নজরুল ইসলাম মিন্টু, দারুল আবরার মাদ্রাসার সেক্রেটারি মাহফুজুল হক, দাগনভূঞা আই কেয়ার হাসপাতালের পরিচালক মাওলানা শাহ আলম, সমাজসেবক আবু হাসান দিদার।