৩০ বছর ধরে পবিত্র কোরআনের অনুলিপি তৈরি করছেন উসমান তোহা

কোরআন আল্লাহর কিতাব। এটি মানুষের চূড়ান্ত জীবন বিধান। কোরআন অনুযায়ী জীবন পরিচালনা করা মুসলিম উম্মাহর জন্য আবশ্যক।

তিন দশকের বেশি কাল ধরে পবিত্র কোরআনের ক্যালিগ্রাফি করে অসামান্য অবদানের সম্মাননা হিসেবে শায়খ উসমান তোহাকে নাগরিকত্ব দিয়েছে সৌদি আরব। গত শনিবার (১৮ ডিসেম্বর) এক রাজকীয় নির্দেশনায় তাঁকে নাগরিকত্ব দিয়েছেন দেশটির বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ।

সৌদির স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ ৩০ বছরের বেশি সৌদি ক্যালিগ্রাফার হিসেবে কাজ করছেন সিরিয়ান বংশোদ্ভূত শায়খ উসমান তোহা।

পবিত্র মসজিদুল হারামের ইমাম ও খতিব মাহের আল মুআইকলি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাঁকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ‘সৌদি নাগরিকত্ব পাওয়ায় পবিত্র কোরআনের ক্যালিগ্রাফার উসমান তোহার প্রতি আমরা শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।’

এর আগে গত ১১ নভেম্বর পবিত্র কাবাঘরের গিলাফ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানের প্রধান ক্যালিগ্রাফার বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শায়খ মুখতার আলমকে নাগরিকত্ব দেওয়া হয়।

সৌদি আরবের মদিনায় অবস্থিত কোরআনের বিখ্যাত মুদ্রণপ্রতিষ্ঠান কিং ফাহাদ কমপ্লেক্সের প্রসিদ্ধ ক্যালিগ্রাফার উসমান তোহা। কিং ফাহাদ কোরআন কমপ্লেক্সে দীর্ঘকাল ধরে কোরআনের লিপিকার হিসেবে কাজ করছেন। সৌদি আরবে মুদ্রিত পবিত্র কোরআনের বহুল প্রচলিত কপির অনুলিপি তিনিই তৈরি করেছেন।

১৯৩৪ সালে সিরিয়ার হালব নগরে জন্মগ্রহণ করেন উসমান তোহা। তাঁর বাবা শায়খ আবদুহু হোসাইন তোহা স্থানীয় একটি মসজিদের ইমাম, খতিব ও সুদক্ষ ক্যালিগ্রাফার ছিলেন। তিনি ছোটবেলায় ক্যালিগ্রাফিশিল্পের মৌলিক শিক্ষা বাবার কাছেই পেয়েছেন।

১৯৬৪ সালে দামেস্ক বিশ্ববিদ্যালয়ে শরিয়াহ বিষয়ে স্নাতক সম্পন্ন করেন। ১৯৬৫ সালে শিক্ষা ও গবেষণা বিষয়ে ডিপ্লোমা করেন। ১৯৭০ সালে সিরিয়ার আওকাফ মন্ত্রণালয়ের জন্য প্রথমবারের মতো পবিত্র কোরআনের অনুলিপি তৈরি করেন।

সূত্র : নিউজ আল মদিনা