অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে বাংলাদেশকে ১০০ মিলিয়ন ডলার ঋণ দেবে দ. কোরিয়া

মহামারিতে ক্ষতিগ্রস্ত বাংলাদেশের অর্থনীতির পুনরুদ্ধারে সহায়তার জন্য অর্থনৈতিক উন্নয়ন সহযোগিতা তহবিল (ইডিসিএফ) থেকে ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ছাড়ের ঋণ প্রদানের জন্য একটি চুক্তি সই করেছে দক্ষিণ কোরিয়া সরকার।

অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) অতিরিক্ত সচিব মো. শাহরিয়ার কাদের সিদ্দিকী এবং কোরিয়ার এক্সপোর্ট-ইমপোর্ট ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক কিম তে সু নিজ নিজ পক্ষ থেকে চুক্তিতে সই করেন।

কোরিয়া এক্সিম ব্যাংক থেকে এই মাসের মধ্যেই অর্থ ছাড় প্রদান করা হবে।

উন্নয়নশীল দেশগুলোর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে সহায়তার জন্য একটি কোরিয়ার উন্নয়ন অর্থায়ন কর্মসূচি ইডিসিএফ।

বার্ষিক ঋণের সুদের হার ০.০৫ শতাংশ এবং ১৫ বছরের গ্রেস পিরিয়ডসহ ম্যাচুরিটি সময়কাল ৪০ বছর।

কোরিয়া প্রজাতন্ত্র ইতোমধ্যেই কোভিড-১৯ মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য বাংলাদেশের প্রচেষ্টাকে সহায়তার জন্য ২০২০ সালের ডিসেম্বরে বাজেট সহায়তা হিসাবে ৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ইডিসিএফ ঋণ প্রদান করেছে। এটি এই ধরনের কনসেশনাল লোনের দ্বিতীয় বিধান।

এ ছাড়া, এটি ২০২১ থেকে ২০২৫ সালের জন্য নতুন ইডিসিএফ ফ্রেমওয়ার্ক চুক্তির অধীনে বাস্তবায়িত হওয়া প্রথম ইডিসিএফ ঋণ হবে। যা ২৪ অক্টোবর ২০২১-এ দুই সরকারের মধ্যে স্বাক্ষরিত হয়েছিল।

চুক্তি অনুসারে, কোরিয়ান সরকার বাংলাদেশ সরকারকে কনসেশনাল লোন হিসেবে ৫ বছর মেয়াদে ৭০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার প্রদান করবে।

১০০ মিলিয়ন ইউএস ডলারের নতুন ছাড়যুক্ত ঋণ ব্যবহার করা হবে বেশ কয়েকটি প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য; মূলত পাবলিক ফাইন্যান্স ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের অগ্রগতি এবং মহামারির পুনরাবৃত্তি থেকে সংগ্রামরত ছোট ও মাঝারি আকারের ব্যবসার উন্নতির লক্ষ্যে।

বাংলাদেশ বিশ্বব্যাপী ইডিসিএফ ঋণের মোট পরিমাণে দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রহীতা। এ পর্যন্ত কোরিয়া প্রজাতন্ত্র ইডিসিএফ-এর মাধ্যমে বাংলাদেশের ২৪টি উন্নয়ন প্রকল্পে মোট ১ দশমিক ২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থায়ন করেছে।